সর্বশেষ সংবাদ
প্রচ্ছদ / স্বাস্থ্য / বগুড়া সদরের গোকুল ইউনিয়নে ৯টি স্থানে জনস্বাস্থ্য বিভাগের নির্মিত নলকূপ অকেজো জনদূর্ভোগ চরমে দেখার যেন কেউ নেই…

বগুড়া সদরের গোকুল ইউনিয়নে ৯টি স্থানে জনস্বাস্থ্য বিভাগের নির্মিত নলকূপ অকেজো জনদূর্ভোগ চরমে দেখার যেন কেউ নেই…

এস আই সুমন,স্টাফ রির্পোটারঃ
বগুড়া সদরের গোকুল ইউনিয়নে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী অধিদপ্তরের গভীর নলকূপ স্থাপনের এক বছরের মধ্যই অকেজো জনদূর্ভোগ চরমে, দেখার যেন কেউ নাই।
সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে,বগুড়া সদরের গোকুল ইউনিয়নের ৯টি স্থানে জনস্বাস্থ্য ও প্রকৌশলী অধিদপ্তর কর্তৃক অগভীর নলকূপ স্থাপন করা হয়। নির্মানের কিছুদিন পরই সেগুলো অকেজো হয়ে যায়।
যেগুলো স্থানে নলকূপ স্থাপন করা হয় সেই স্থান গুলো হলোঃ ইউনিয়নের পলাশবাড়ি দক্ষিনপাড়া পাকা রাস্তা সংলগ্ন রফিকুলের বাড়ির পাশে,একই গ্রামের দক্ষিনপাড়া বায়তুল মামুন জামে মসজিদ সংলগ্ন,রামশহর পূর্বপাড়া কবরস্থান সংলগ্ন,গোকুল ছমিল বন্দর বায়তুস সালাম জামে মসজিদ সংলগ্ন,বড় ধাওয়াকোলা বন্দর মোড়,গোকুল উত্তরপাড়া আব্দুল আজিজ বাবুল্যার বাড়ি সংলগ্ন,একই গ্রামের রাজুর বাড়ির পাশে ফাঁকা জায়গায়,মিরাজের পাড়া আব্দুল মান্নানের বাড়ির সামনে রাস্তায় ও পলাশবাড়ী মিল বন্দর কমিউনিটি ক্লিনিকের সামনে।

দীর্ঘদিন ধরে নলকূপগুলো অযত্নে অবহেলায় পরে থাকলেও কর্তৃপক্ষ উদাসীন, মেরামত করার উদ্যোগ গ্রহন করেনি।
ফলে সাধারন জনগন ও সুবিধাভোগী পরিবারের সদস্যরা পবিত্র রমজান মাসে পানির জন্য চরম দূর্ভোগে পরেছেন।
এব্যাপারে গোকুল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ সওকাদুল ইসলাম সরকার সবুজ এর সাথে কথা বললে তিনি জানান,এলাকাবাসী ও সুবিধাভোগী পরিবার তাকে বিষয়টি বললে তিনি জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী অধিদপ্তর বিভাগের কর্তৃপক্ষকে মৌখিক ও লিখিত ভাবে বিষয়টি জানালেও এখনো তারা সেগুলো মেরামতের কোন উদ্যোগ গ্রহন করেনি।
বিষয়টি ভুক্তভোগী পরিবার উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

 

Advertisement

Check Also

করোনা মোকাবেলায় সকল বেসরকারি হাসপাতাল গুলোকে একযোগে কাজ করতে হবেঃ ডলার।

আরমান হোসেন ডলার (বিশেষ প্রতিনিধি)বগুড়াঃ বাংলাদেশ হঠাৎ করে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়া দেশের মানুষ …