সর্বশেষ সংবাদ
প্রচ্ছদ / সারাদেশ / পুলিশের শরীরের সঙ্গে আসামিকে হাতকড়া, প্রসংশায় এএসআই

পুলিশের শরীরের সঙ্গে আসামিকে হাতকড়া, প্রসংশায় এএসআই

নন্দীগ্রাম -(বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বাসা থেকে দুপুরের খাবার খেয়ে থানায় ফিরছিলেন বগুড়ার নন্দীগ্রাম থানা পুলিশের এএসআই আবুল কালাম আজাদ। মোটরসাইকেলে তিনি একাই ছিলেন। পথিমধ্যে সদরের বাসস্ট্যান্ডে মো. রাজু (২৩) নামের পলাতক আসামির মুখোমুখি হন। একটি চুরির মামলায় ওয়ারেন্টমূলে তাকে গ্রেফতার করা হয়। সে উপজেলার কাথম বেড়াগাড়ি গ্রামের মৃত পিংকু মিয়ার ছেলে।

শুক্রবার (৬ মে) তাকে বগুড়া কোর্ট হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

প্রাপ্ততথ্যে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে নন্দীগ্রাম সদরের বাসস্ট্যান্ড থেকে ওই আসামিকে ওয়ারেন্টমূলে গ্রেফতার করা হয়। থানার দুরত্ম কম হওয়ায় এবং স্থানীয়দের সহযোগিতায় আসামিকে মোটরসাইকেলের পেছনে বসিয়ে নিজের শরীরের সঙ্গে হাতকড়া পরিয়ে থানায় নিয়ে যান ওই পুলিশ অফিসার। তিনি মোটরসাইকেল ধীরে চালাচ্ছিলেন, আসামিও পেছনে চুপচাপ বসে ছিলেন।

পুলিশ অফিসার একাই আসামি ধরে নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি মানুষের নজরকাড়ে। অনেকে নিজেদের মোবাইলে ছবি তোলেন। রাস্তায় চলাচলরত পথচারি, যানবাহনের চালক-যাত্রীরা এবং শহরের দোকানিরা ওই পুলিশ কর্তার সাহসিকতার প্রশংসা করেন।

পুলিশের শরীরের সঙ্গে আসামিকে হাতকড়া পরিয়ে নিয়ে যাওয়ার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে ভাইরাল হয়। সেখানেও নেটিজনেরা এই পুলিশ কর্তার প্রশংসা করেন।

চুরির মামলায় আসামি মো. রাজুর বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট ছিল। পালিয়ে বেড়াচ্ছিল এই আসামি। তার বিরুদ্ধে তিনটি চুরি মামলা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

থানার এএসআই আবুল কালাম আজাদ বলেন, নন্দীগ্রাম বাসস্ট্যান্ডের পাশেই তার বাসা। দুপুরের খাবার খেয়ে তিনি একাই থানায় ফিরছিলেন। পথিমধ্যে নন্দীগ্রাম বাসস্ট্যান্ডে ওয়ারেন্টের পলাতক আসামিকে পেয়ে গ্রেফতার করেন। থানার দুরত্ম কম হওয়ায় এবং স্থানীয়দের সহযোগিতায় গ্রেফতারকৃত আসামিকে তার মোটরসাইকেলের পেছনে বসিয়ে নিজের শরীরের সঙ্গে হাতকড়া পরিয়ে থানায় নিয়ে যান।

Advertisement

Check Also

বগুড়ার মহাস্থান প্রেসক্লাবের বিশেষ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

প্রেস রিলিজ——– বগুড়ার মহাস্থান প্রেসক্লাবের বিশেষ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুর ২টায় মহাস্থান প্রেসক্লাবের …