সর্বশেষ সংবাদ
প্রচ্ছদ / রাজশাহী বিভাগ / নন্দীগ্রামে নেশার টাকা না পেয়ে নির্যাতন করে বৃদ্ধ বাবা কে বাড়ি ছাড়া করলো মাদকাসক্ত ছেলে

নন্দীগ্রামে নেশার টাকা না পেয়ে নির্যাতন করে বৃদ্ধ বাবা কে বাড়ি ছাড়া করলো মাদকাসক্ত ছেলে

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি:

বগুড়ার নন্দীগ্রামে নেশার টাকা না পেয়ে ও মাদক সেবন ও বিক্রিতে নিষেধ করায় এক বৃদ্ধ বাবা কে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দিল এক মাদকাসক্ত পাষন্ড ছেলে, ঘটনাটি ঘটেছে নন্দীগ্রাম উপজেলার ২নং সদর ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রামে, গ্রামবাসী জানান, ভবানীপুর গ্রামের আফতাব আলীর ৪মেয়ে ও এক ছেলে নিয়ে সুখের সংসার ছিলো, কিন্তু আফতাব আলীর একমাত্র ছেলে হাকিম আলী মাদকের নেশায় আসক্ত হলে তাদের সংসারে নেমে আসে অন্ধকার, হাকিম তার নেশার টাকার জন্য পিতা আফতাব আলীর উপর শুরু করে নির্যাতন, একমাত্র ছেলের নির্যাতন সইতে না পেরে আফতাব আলী জমি বেচে টাকা দিতে দিতে তার ১০থেকে ১১বিঘা জমি বেচে দেয়, এর মধ্যেই ছেলে হাকিম আলী হয়ে উঠে একজন মাদক সেবন কারি থেকে মাদক ব্যাবসায়ী, থানায় মাদক কারবারির লিস্টে লাগানো হয় হাকিম আলীর ছবি, গ্রামবাসী আরো জানান, কয়েক মাস আগে ডিবি পুলিশ হাকিম আলী কে গ্রেফতারের পর জেল খেটে এসে কয়েক মাস ভালই ছিলো কিন্তু আবারো হাকিম আলী নেশায় আসক্ত হয়ে পরে এবং শুরু করে মাদকের ব্যাবসা, হাকিমের স্ত্রী সন্তান মাদক সেবন ও বিক্রির প্রতিবাদ করায় হাকিম তার স্ত্রী সন্তান কে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে, এখন হাকিমের টার্গেট তার ৬৫ বছর বয়সের বৃদ্ধ বাবা আফতাবের নাতী কে জীবন শর্তে দেওয়া দেড় বিঘা জমি, কয়েক দিন ধরে হাকিম তার পিতা আফতাব আলীর উপর চাপ প্রয়োগ করে আসছে তার জমি বন্ধক রেখে তাকে টাকা দিতে, কিন্তু বৃদ্ধ পিতা তার কথায় রাজি না হলে শুরু হয় পিতা আফতাব আলীর উপর নির্যাতন, ছেলের নির্যাতন সইতে না পেরে আফতাব আলী এখন বাড়ি ঘর ও গ্রাম ছেরে শিমলা গ্রামের মোশাররফ এর বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে, উক্ত বিষয়ে বৃদ্ধ পিতা আফতাব আলীর সাথে কথা বললে তিনি জানান, আমার মাদকাসক্ত ছেলে হাকিম আলীর জন্য আমার সব সম্পত্তি নস্ট করে শেষ বয়সে মানুষের বাড়িতে কাজ করছি, বর্তমানে আমার মাদকাসক্ত ছেলে মাদক সেবন ও ব্যাবসার জন্য জীবন শর্তে আমার নাতিকে দেওয়া জমি বন্ধক রেখে টাকা নিতে আমাকে মারধর সহ নির্যাতন চালাচ্ছে, এমনকি গভীর রাতে আমি যখন ঘুমিয়ে পরি তখন আমার মাদকাসক্ত ছেলে জোর কর ঘরে ঢুকে আমার মুখে বালিশ চাপা দেয় এবং আমার গলায় চাকু ধরে বলে ২দিনের মধ্যে জমি বন্ধক রেখে টাকা না দিলে একেবারে প্রানে মেরে ফেলবে, তাই আমি প্রানের ভয়ে বাড়ি ঘর এমনকি গ্রাম ছেরে শিমলা গ্রামে আশ্রয় নিয়েছি, এই বিষয়ে গ্রামবাসী সহযোগীতা কিংবা প্রশাসনের সহযোগীতা চেয়েছেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে বৃদ্ধ আফতাব আলী বলেন, গ্রামের কেউ তার ভয়ে কথা বলতে পারেনা আর থানায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করলে আমাকে যেখানে পাবে সেখানেই মেরে ফেলবে, এলাকা বাসী জানান, মাদকাসক্ত ও মাদক ব্যাবসায়ী হাকিম আলী এক আতংকের নাম, সে ভালো ছেলেদের মাদকে আসক্ত করছে, এলাকার মেয়েরাও তার থেকে নিরাপদ নয়, তাই মাদকদসক্ত ও মাদক ব্যাবসায়ী হাকিম আলীর বিষয়ে প্রশাসনের শুদৃস্টি কামনা করেন এলাকাবাসী।

Advertisement

Check Also

  অনলাইন ডেস্ক ঃ বগুড়ায় স্থগিত ৪টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দুইটিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত এবং …

Leave a Reply

Your email address will not be published.