ধুনটে গ্রাম্য ডাক্তার কর্তৃক দৃষ্টি প্রতিবন্ধী বিধবা ধর্ষিত

কারিমুল হাসান লিখন, ধুনটঃ বগুড়ার ধুনটে গ্রাম্য ডাক্তার কর্তৃক দৃষ্টি প্রতিবন্ধী বিধবা নারীকে কে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার ভন্ডারবাড়ী ইউনিয়নের ভুতবাড়ী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ধর্ষিতা বিধবা সিরাজগঞ্জ জেলার কাজীপুর উপজেলার পরানপুর গ্রামের
আব্দুল মজিদের মেয়ে ও কুনকুনিয়া গ্রামের মৃত আবু বক্করের স্ত্রী। এবিষয়ে ধুনট থানায় বৃহস্পতিবার রাতে ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে ধর্ষক শ্রী উত্তম কুমার (৪৫) এর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। মামলা সুত্রে জানা যায়, প্রায় ১০ বছর পুর্বে সিরাজগঞ্জ জেলার কাজিপুর উপজেলার পরানপুর গ্রামের আব্দুল মজিদের দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মেয়ের সাথে একই উপজেলার কুনকুনিয়া গ্রামের মৃত দেলবর রহমানের ছেলে আবু বক্করের সাথে ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক বিবাহ হয়। আবু বক্কর মসজিদের ইমামতির কাজ করার সুবাদে ধুনট উপজেলার ভুতবাড়ী গ্রামের হাজীপড়ায় ঘর নিমার্ণ করে বসবাস করে আসছিলো। প্রায় ২বছর পুর্বে শারীরিক
ভাবে অসুস্থ্য হওয়ার কারনে মৃতু বরণ করে আবু বক্কর। তারপর থেকেই ওই দৃষ্টি
প্রতিবন্ধী নারী ওই বাড়ীতেই একা বসবাস করতেন। বসবাস চলাকালীন ওই
এলাকার মৃত জগিন্দ্রনাথ সরকারের ছেলে শ্রী উত্তম কুমার সরকারের ঔষধের
দোকান থেকে দৃষ্টি প্রতিবন্ধি বিধবা নারী প্রয়োজনীয় ঔষধপত্র ক্রয় করতো।
এই সুবাদে গ্রাম্য ডাক্তার শ্রী উত্তম কুমার সরকার দৃষ্টি প্রতিবন্ধী নারীকে বিভিন্ন ধরনের প্রলোভন ও কু-প্রস্তাব দিয়ে সম্পর্ক তৈরির চেষ্টা করতো। এরই এক পযার্য়ে শ্রী উত্তম কুমার হিন্দু ধর্ম থেকে ধর্মান্তরিত হয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করে। ধর্মন্তরিত হওয়ার পর দৃষ্টি প্রতিবন্ধী নারীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে জোড়করে ধর্ষন করে। এঘটনায় দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী বিধবা নারী ৪ মাসের অন্তঃসত্তা হয়। গর্ভের সন্তান নষ্ট করার জন্য গত ৫ সেপ্টেম্বার ২০১৯ইং তারিখে দৃষ্টি প্রতিবন্ধি বিধবা নারীকে কৌশলে ঔষধ সেবন ও ইচ্ছার বিরুদ্ধে আবারো জোড়পূর্বক ধর্ষন করে শ্রী উত্তম কুমার। পরে দিন ওই বিধবার গর্ভপাত ঘটে। পরের দিন সে অসুস্থ হয়ে পরলে সে তার বাবাকে বিষয়টি জানান। গর্ভপাতের কয়েক দিন আগে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী বিধবা নারীর কাছ থেকে ২১,৭০০/- টাকা ধার হিসাবে নেয় ধর্ষক উত্তম কুমার । ধুনট থানার এসআই নুরুজ্জামন সরদার বলেন, ধর্ষকের বিরুদ্ধে
মামলা দায়ের হয়েছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ ইসমাইল হোসেন জানান, শুক্রবার দুপুরে ওই দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী নারীকে শারিরিক পরীক্ষার জন্য সহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মামলার আসামীকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published.


Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (1) in /home/ajkersangbad/public_html/wp-includes/functions.php on line 5275

Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (1) in /home/ajkersangbad/public_html/wp-includes/functions.php on line 5275